আফগানিস্তান ও ইন্দো-প্যাসিফিক নিয়ে মোদি-ম্যাক্রন ফোনালাপ

আফগানিস্তান ও ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল নিয়ে টেলিফোনে কথা বলেছেন ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রন। অস্ট্রেলিয়াকে সাবমেরিন প্রযুক্তি দেয়া ইস্যুতে ফ্রান্স যখন পশ্চিমা মিত্রদের ওপরে নাখোশ তখনই এই ফোনালাপ হলো। মোদি ও ম্যাক্রনের মধ্যে কথা হয়েছে আফগানিস্তান ইস্যুতেও। এছাড়া আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে গুরুত্বপূর্ণ ইন্দো-প্যাসিফিক অঞ্চল নিয়েও আলোচনা করেছেন দুই নেতা। দুইটি বিষয় নিয়েই একযোগে কাজ করার কথা বলেছেন তারা। এ খবর দিয়েছে ডয়েচে ভেলে। এতে জানানো হয়েছে, তিনদিনের সফরে বুধবার যুক্তরাষ্ট্রে গেছেন মোদি। জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদে ভাষণ দেয়া ছাড়াও তিনি মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের সঙ্গে বৈঠক করবেন এবং কোয়াডের বৈঠকে অংশ নেবেন।

ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রীংলা জানিয়েছেন, বাইডেনের সঙ্গে মোদির বৈঠকে আফগানিস্তান নিয়ে আলোচনা হবে।

ম্যাক্রনের সঙ্গে ফোনে কথা বলার পর এ নিয়ে একটি টুইট করেছেন মোদি। এতে তিনি লিখেছেন, আমার বন্ধু ম্যাক্রনের সঙ্গে ফোনে কথা হয়েছে। আফগানিস্তান নিয়ে আলোচনা হয়েছে। ইন্দো-প্যাসিফিকে দুই দেশ আরো ঘনিষ্ট সহযোগিতার ভিত্তিতে কাজ করবে। ফ্রান্সের সঙ্গে আমাদের কৌশলগত সম্পর্ক খুবই মূল্যবান। এছাড়া, ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ও ভারতে প্রধানমন্ত্রীর অফিস থেকেও বিবৃতি জারি করা হয়েছে। ভারতীয় প্রধানমন্ত্রীর অফিস জানিয়েছে, দুই নেতা আফগানিস্তান ও আঞ্চলিক নানা বিষয় নিয়ে আলোচনা করেছেন। দুই নেতাই সন্ত্রাসবাদের প্রসার, বেআইনি অস্ত্র, মাদক ও মানুষ পাচার নিয়ে উদ্বিগ্ন। তারা মানববাধিকার, নারী এবং সংখ্যালঘুদের অধিকাররক্ষার প্রয়োজনীয়তার উপরেও জোর দিয়েছেন। অপরদিকে ম্যাক্রনের অফিস থেকে জারি করা বিবৃতিতে বলা হয়েছে, ভারত ও ফ্রান্স আঞ্চলিক স্থায়িত্ব ও আইনের শাসনের পক্ষে এবং দাদাগিরির বিপক্ষে। দুই নেতাই দুই দেশের সম্পর্ক বিশ্বাস ও আস্থার ভিত্তিতে আরো দৃঢ় করতে আগ্রহী।