ছেলেকে ঈদে জামা কিনে না দেয়ায় স্বামী-স্ত্রীর দুই পক্ষের সংঘর্ষ, আহত ৭

পটুয়াখালীর গলাচিপায় ছেলেকে ঈদে নতুন জামা কিনে না দেয়ায় স্বামী-স্ত্রীর দুই পক্ষের সংঘর্ষে সাতজন আহত হয়েছেন। ঈদের দিন শুক্রবার (১৪ মে) উপজেলার রতনদি তালতলী ইউনিয়নের বালির হাওলা গ্রামের বাদল হাওলাদারের বাড়িতে এ ঘটনা ঘটে। গুরুতর আহত ছয়জনকে গলাচিপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ দুইজনকে আটক করেছে।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, উপজেলার রতনদি তালতলী ইউনিয়নের বালির হাওলা গ্রামের বাদল হাওলাদার (৩৫) তার সাত বছরের ছেলেকে ঈদে নতুন জামা কিনে না দেওয়ায় গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ মে) রাতে স্ত্রী লুৎফার বেগম (৩০) তার স্বামীর কাছে কারণ জিজ্ঞাসা করে। এ নিয়ে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বাকাবিতন্ডা হয়। এক পর্যায়ে বাদল তার স্ত্রীকে মারধর করে।

লুৎফার মারধরের ঘটনা তার বাবার বাড়ির লোকজনকে জানালে শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে তার ভাইয়েরা বাদলের বাড়িতে গিয়ে বাদলকে গালমন্দ করলে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। এতে বাদল, লুৎফার বেগম, ফকু হাওলাদার, আবুল কাসেম, মিন্টু হাওলাদার, রাসাদুল ও সোহাগ আহত হয়। গলাচিপা থানা পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে লুৎফার বেগমের ভাই আলামিন ও আলমগীরকে আটক করে।
গলাচিপা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) এমআর শওকত আনোয়ার ইসলাম বলেন, ঈদের দিন মারামারির ঘটনা খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে দুইজনকে আটক করেছে। এখনও কোন পক্ষ থানায় অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।