ফরিদপুর ও মধুখালীতে জমজমাট প্রচার-প্রচারণা

মীর আনিস/ফরিদপুর প্রতিনিধি: ফরিদপুর ও মধুখালী পৌরসভা নির্বাচনের প্রচার-প্রচারণা বেশ জমে উঠেছে। প্রতীক বরাদ্দ পেয়ে প্রচারযুদ্ধে নেমে পড়েছেন প্রার্থীরা। মূল সড়ক ও অলিগলিতে শুরু হয়েছে নৌকা-ধানের শীষের স্লোগান। চায়ের আড্ডা থেকে রাজনৈতিক অঙ্গন- সর্বত্রই আলোচনায় নৌকা এবং ধানের শীষ।
ভোটারদের কাছে টানতে নানা কৌশল অবলম্বন করছেন প্রার্থীরা। ডিজিটাল প্রচারণা, বিভিন্ন ধরনের নির্বাচনি গান, গণসংযোগ, পরিচিত লোকজনকে নিজেদের পক্ষে প্রচারে নামানো, প্রতিশ্রুতির ফুলঝুরিসহ সব চেষ্টা অব্যাহত রয়েছে। ফেসবুকে পেজ খোলাসহ প্রার্থীদের লাইভ করার মাধ্যমে এবারের প্রচারে ভিন্নমাত্রা যোগ হয়েছে । প্রতীক বরাদ্দের পর শুরু হওয়া প্রচারণার প্রথম দিনে লিফলেট বিলি, গণসংযোগ, ভোটারের দুয়ারে দুয়ারে ধরনা দিয়েই কেটেছে প্রার্থীদের দিন।

এ ছাড়া ইসির বিধি অনুযায়ী, মাইকিং করার জন্য সময় নির্দিষ্ট করে বেঁধে দেয়া হলেও কোথাও কোথাও সেই নিয়ম মানা হয়নি। প্রচারণা শুরুর দিকে প্রার্থীদের পোস্টার ঝোলানো নিয়েই ব্যস্ত সময় কাটছে তাদের সমর্থকদের। এর মধ্যে কোনো কোনো প্রার্থীর পোস্টারের ওপর পলিপ্রিন্টের প্রলেপ দেখা গেছে।
গতকাল মঙ্গলবার প্রতীক পেয়ে পুরোদমে নির্বাচনী প্রচার শুরু করেছেন মধুখালী ও ফরিদপুরের মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। প্রথম দিনেই মেয়র প্রার্থীদের অধিকাংশই দলীয় নেতাকর্মীদের নিয়ে ভোটের আনুষ্ঠানিক প্রচার শুরু করেছেন। কাউন্সিলর প্রার্থীরাও গেছেন ভোটারদের দ্বারে দ্বারে।

ফরিদপুরÑ আনুষ্ঠানিক প্রচারের প্রথম দিনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী অমিতাভ বোস নেতা-কর্মীদের নিয়ে নগরীর বিভিন্ন এলাকায় গনসংযোগ করেন। এসময় তিনি উন্নয়নের ধারা অব্যাহত , শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করতে নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করেন। অপর দিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী নায়েবা ইউসুফ নগরীরর নিউমার্কেট এলাকা ও কোর্ট চত্ত্বর এলাকায় গনসংযোগ করেন। এসময় তিনি বলেন উন্নয়নের প্রতীক ধানের শীষ, শান্তির প্রতীক ধানের শীষ। ধানের শীষে ভোট দিন উন্নয়নের শপথ নিন।

মধুখালীÑ আনুষ্ঠানিক প্রচারের প্রথম দিনে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী খন্দকার মোরশেদ রহমান লিমন পৌর এলাকার বিভিন্ন স্থানে গনসংযোগ করেন এবং নৌকা প্রতীকে ভোট চান। অপর দিকে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শাহাবুদ্দীন আহম্মেদ সতেজ পৌর এলাকার বিভিন্ন স্থানে গনসংযোগ করেন। এসময় তিনি বলেন ধানের শীষে ভোট প্রার্থনা করেন।

এছাড়াও পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের কমিশনার ও সংরক্ষিত মহিলা কমিশনার প্রার্থীরা স্ব-স্ব ওর্য়াডে জনসংযোগ করেন।

আগামী ১০ ডিসেম্বর ভোট গ্রহন।