ওসি প্রদীপসহ ৩ কর্মকর্তার সাতদিনের রিমান্ড

 

নিজস্ব প্রতিবেদক: অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মোহাম্মদ রাশেদ খান নিহতের ঘটনায় করা মামলায় অভিযুক্ত টেকনাফ থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ, পরিদর্শক লিয়াকত আলী ও নন্দ দুলাল রক্ষিতকে রিমান্ডে নিয়েছে তদন্ত সংস্থা র‌্যাব। আজ মঙ্গলবার বেলা সাড়ে ১১টায় তাদের রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ শুরু হয়েছে।

আদালত আগেই এই তিন আসামির সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করতে র‌্যাব হেফাজতে নেয়া হয়েছে।

এদিকে, গত ৩১ আগস্ট ঘটনাস্থল শামলাপুর পুলিশ চেকপোস্টে দায়িত্ব পালনকারী তিন এপিবিএন সদস্যকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। এ নিয়ে এ ঘটনায় ১০ জনকে গ্রেফতার করা হলো।

গ্রেফতার তিন জন হলেন- এপিবিএনের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শাহজাহান, কনস্টেবল রাজীব ও আব্দুল্লাহ। ঘটনার দিন এ তিন জনই এপিবিএনের চেকপোস্টে দায়িত্ব পালন করেন।

এছাড়া ওই মামলায় রামু থানায় সংরক্ষিত ৩১টি আলামত র‌্যাব হেফাজতে আনার জন্য আদালতে আবেদন করা হয়েছে বলেও জানান র‌্যাব কর্মকর্তা।

এর আগে গত ৫ আগস্ট টেকনাফ থানার সাবেক ওসি প্রদীপ কুমারসহ ৯ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে মামলা করেন সিনহার বোন। পর দিন আদালতে আত্মসমর্পণ করেন প্রদীপসহ ৭ আসামি। পরে দুই দফা শুনানি শেষে তিন কর্মকর্তার সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়। এর কয়েকদিন পর বাকি চার পুলিশ সদস্যকে রিমান্ড দেন আদালত।

গত ৩১ জুলাই রাতে টেকনাফের শামলাপুর পুলিশের তল্লাশি চৌকিতে পুলিশের গুলিতে নিহত হন অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা রাশেদ খান।