আধা ঘণ্টার ব্যবধানে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ৪ জন নিহত

নিজস্ব প্রতিবেদক: ঢাকা ও কক্সবাজারে র‍্যাব ও পুলিশের সঙ্গে পৃথক বন্দুকযুদ্ধে কমপক্ষে চার ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহতরা ইয়াবা কারবারের সঙ্গে জড়িত বলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী দাবি করেছে। বৃহস্পতিবার রাত আড়াইটার দিকে রাজধানীর তুরাগ থানাধীন দিয়াবাড়ী এলাকায় র‍্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইব্রাহিম খলিল (৪৫) ও ওমর ফারুক (৩৫) নামে দুজন নিহত হন।

র‌্যাব-১ এর কর্মকর্তা সহকারী ‍পুলিশ সুপার মো. কামরুজ্জামান বলেন, ‘গোপন সংবাদের ভিত্তিতে দিয়াবাড়িতে র‌্যাব চেকপোস্ট বসিয়ে তল্লাশি করছিল। একটি মোটর সাইকেলকে থামার সঙ্কেত দিলে আরোহীরা না থেমে র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এসময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি চালায়।’

গুলিবিদ্ধ দুজনকে সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিলে চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

র‍্যাব জানায়, ঘটনাস্থল থেকে দুটি বিদেশি পিস্তল, গুলি ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ও ইয়াবা পরিবহনে ব্যবহৃত মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

এদিকে বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ৩টার দিকে কক্সবাজারের টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত বন্দুকযুদ্ধে একজন ইউপি সদস্য ও এক রোহিঙ্গা যুবক নিহত হন।

নিহতরা হলেন- উখিয়া উপজেলার রাজাপালং ইউনিয়নের কুতুপালং এলাকার মৃত কালা মিয়ার ছেলে বর্তমান ইউপি মেম্বার মৌলবী বখতিয়ার আহমদ প্রকাশ বখতিয়ার মেম্বার (৫৫) ও কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্প ই-ব্লকের ইউসুফ আলীর ছেলে মো. তাহের (২৭)।

টেকনাফ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ জানান, গ্রেপ্তার দুজনকে নিয়ে টেকনাফ থানা পুলিশের একটি দল অভিযানে গেলে কিছু ইয়াবাকারবারি আসামিদের ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করলে এ ঘটনা ঘটে।

তিনি জানান, ঘটনাস্থল তল্লাশি করে পাঁচটি দেশীয় তৈরি এলজি, ১৭ রাউন্ড কার্তুজ, ১৩ রাউন্ড কার্তুজের খোসা এবং ২০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।