গরু বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় খামারীরা

নিজস্ব সংবাদদাতা: কোরবানির ঈদ সামনে রেখে দেশের বিভিন্ন এলাকায় পশু পরিচর্যায় ব্যস্ত খামারীরা। গাজীপুরে এবার চাহিদার চেয়ে বেশী গরু রয়েছে খামারগুলোতে। তবে করোনা প্রাদুর্ভাবের কারণে পশু বিক্রি নিয়ে দুশ্চিন্তায় খামারীরা। কেউ কেউ গরু বিক্রি করছেন অনলাইনে। এদিকে গরুর ভালো দাম না পাওয়ায় আশঙ্কা প্রকাশ করেছেন ফরিদপুরের খামারিরা।

গাজীপুর জেলায় কোরবানির পশুর চাহিদা রয়েছে ২৫ হাজার। এর মধ্যে ৬ হাজার ৮৬১টি খামারে কোরবানি যোগ্য গরু রয়েছে ৪০ হাজারের বেশি। ঈদ ঘনিয়ে আসায় খামারিরা ব্যস্ত পশু পরিচর্যায়।

তবে করোনার কারণে হাট বসা নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে খামারীদের মাঝে। তাই অনলাইনে গরু বিক্রির উদ্যোগ নিয়েছেন কেউ কেউ।

করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় অনলাইনে কোরবানির পশু কেনায় এরইমধ্যে সাড়া ফেলেছে ক্রেতাদের মাঝে।

বাজার ভালো থাকলে আশপাশের জেলায়ও কোরবানির পশু সরবরাহ করা যাবে বলে বলে আশা প্রকাশ করেন গাজীপুরের প্রাণীসম্পদ কর্মকর্তা।

এদিকে, ফরিদপুরের ৩ হাজার খামারে কোরবানি যোগ্য পশু আছে ৪৬ হাজার। করোনা মহামারির কারণে এবছর বাইরের ব্যবসায়ী না আসায় সঠিক দাম পাওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন খামারীরা।

জেলা প্রানিসম্প্রদ কর্মকর্তা জানান, অনলাইনে পশু বিক্রি করতে খামারীদের পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।

এবছর ফরিদপুর জেলায় কোরবানি পশুর চাহিদা রয়েছে প্রায় সাড়ে ৩৫ হাজারের।