মাস্ক কেলেঙ্কারিতে জড়িত কাস্টমস ও বিমানের কর্মচারী

নিজস্ব প্রতিবেদক: শাহজালাল আন্তর্জাাতিক বিমানবন্দরের কার্গো এলাকা আমদানি করা মাস্ক খোয়া যাওয়ার সাথে কাস্টমস ও বিমানের কিছু কর্মচারীর জড়িত থাকার প্রমাণ পেয়েছে তদন্ত কমিটি। সংশ্লিষ্ট ৭ জনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার সুপারিশ করেছে সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ। এদিকে অভিযুক্তদের শাস্তি দাবি করেছে আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান তমা গ্রুপ।

করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের কেন্দ্রীয় ঔষধাগারের জন্য চীন থেকে ৩ লাখ ২০ হাজারটি এন-নাইনটি ফাইভ মাস্ক আমদানি করে তমা গ্র“প। তিন চালানে পর্যায়ক্রমে এসব পণ্য আকাশপথে দেশে আসে। শেষ চালানে আসে ১ লাখ ৮শ’ পিস। চালানটি কেন্দ্রীয় ঔষধাগারে পৌঁছানোর পর তারা জানায় কিছু মাস্ক কম পাওয়া গেছে। আমদানিকারক প্রতিষ্ঠান তমা গ্র“প খোঁজ নিয়ে কিছু মাস্ক কম থাকার বিষয়টি নিশ্চিত হয়ে বিষয়টি তদন্তের জন্য সিভিল এভিয়েশনের কাছে আবেদন জানায়।

মাস্ক খোয়া যাওয়ার ঘটনাকে ষড়যন্ত্র উল্লেখ করে অভিযুক্তদের শাস্তির দাবী জানিয়েছে তমা গ্রুপ।

সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তদন্তে বিমান ও কাস্টমসের ৭ জনের সংশ্লিষ্টতা পেয়ে তাদের শাস্তির সুপারিশ করা হয়েছে। তদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলেই ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছে কাস্টমস ও বিমান কর্তৃপক্ষ।