মহিলা দলের সভায় শ্রমিক লীগের হামলার অভিযোগ, আহত ৫

বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জ পৌর শহরের চুনারচর এলাকায় উপজেলা ও পৌর শাখা মহিলা দলের সভায় হামলা-ভাঙচুরের অভিযোগ উঠেছে শ্রমিক লীগ নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে। হামলায় মহিলা দল নেত্রীসহ ৫ জন আহত হয়। এ সময় অর্ধ শতাধিক চেয়ার ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে। তবে শ্রমিক লীগ নেতারা মহিলা দলের কর্মসূচিতে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

এদিকে মহিলা দলের সভা কিংবা হামলার বিষয়ে কিছুই জানেন না বলে দাবি করেছেন মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি।

বরিশাল জেলা (উত্তর) বিএনপি’র সাবেক সভাপতি ও স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য মেজবাউদ্দিন ফরহাদ জানান, শুক্রবার সকাল সাড়ে ১০টায় পৌর শহরের চুনারচর গ্রামে জনৈক শুক্কুর আলীর বাড়ির উঠানে উপজেলা ও পৌরসভা শাখা মহিলা দলের কর্মী সভা শুরু হয়। জেলা (উত্তর) মহিলা দলের সভাপতি শায়লা শারমিন মিমু ও সাধারণ সম্পাদক বেবী আক্তারের উপস্থিতিতে সভার কার্যক্রম শুরুর পরপরই উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল আক্তারের নেতৃত্বে একদল দুর্বৃত্ত জিআই পাইপ ও লাঠিসোটা নিয়ে ওই সভায় হামলা চালায়। এতে উপজেলা মহিলা দলের দুই যুগ্ম আহ্বায়ক বিউটি বেগম ও পপি বেগম, সদস্য ফরিদা নাসরিন, স্থানীয় যুবদল নেতা মো. নূরে আলম বাবুল ও ছাত্রদল নেতা মো. মামুন আহত হয়।

হামলার সময় মহিলা দল নেতাকর্মীরা দিগ্বিদিক ছোটাছুটি করে ছত্রভঙ্গ হয়ে যায়। হামলাকারীরা এ সময় সভাস্থলের অর্ধ শতাধিক চেয়ার ভাঙচুর করে বলে অভিযোগ করেন তিনি। হামলায় আহতদের স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে বলে তিনি জানান। মহিলা দলের শান্তিপূর্ণ কর্মসূচিতে শ্রমিক লীগের হামলার নিন্দা জানিয়ে হামলাকারীদের বিচার দাবি করেন স্থানীয় সাবেক সংসদ সদস্য মেজবাউদ্দিন ফরহাদ।

তবে মহিলা দলের সভায় হামলা চালানোর অভিযোগ অস্বীকার করেছেন উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক বাবুল আক্তার। তিনি বলেন, ঘটনার সময় তিনি বদরপুর এলাকার নিজস্ব ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে ছিলেন। মহিলা দলের নেতাকর্মীরা নিজেদের মধ্যে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়েছে বলে তিনি শুনেছেন।

মেহেন্দিগঞ্জ থানার ওসি শফিকুল ইসলাম জানান, চুনারচর এলাকায় মহিলা দলের সভা আয়োজন কিংবা হামলার বিষয়ে কিছু জানেন না তিনি। এ বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেলে আইনগত ব্যবস্থা নেয়ার কথা বলেন তিনি।