সম্পদের পাহাড় গড়েছেন গৃহায়নের এক কর্মকর্তা

নিজস্ব প্রতিবেদক : দ্বিতীয় শ্রেণীর কর্মকর্তা হয়েও গড়েছেন কোটি টাকার সম্পদ। বিএনপি-জামাতের কোটায় চাকরি পেলেও এখন নিজেকে পরিচয় দেন আওয়ামী লীগার হিসেবে। তিনি জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের প্রশাসনিক কর্মকর্তা এএসএম শামসুদ্দোহা। মিরপুরে তার ও স্ত্রীর কমপক্ষে চারটি ফ্ল্যাট ও ৫ কাঠার প্লটের তথ্য পাওয়া গেছে। তার অবৈধ সম্পদের অনুসন্ধান শুরু করেছে দুদক।

এএসএম শামসুদ্দোহা। জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের প্রশাসনিক কর্মকর্তা। স্টেনোগ্রাফার পদে ১৯৯৪ সালে বিএনপি-জামাত জোট সরকারের সময় দলীয় কর্মী পরিচয়ে চাকরি পান। তবে এখন হয়েছেন আওয়ামী লীগার।

ছোট পদে চাকরি করলেও তার রয়েছে বিপুল সম্পদ। স্ত্রী ও নিজের নামে মিরপুরের স্বপ্ন নগর আবাসিক প্রকল্পে দুটি ফ্ল্যাট, হাউজিং স্টেটে একটি ফ্ল্যাট, মিরপুর সেকশন ৬ এ একটি প্লটসহ নামে বেনামে গড়েছেন কোটি কোটি টাকার সম্পদ।

তার সম্পদের অনুসন্ধানে নেমেছে দুর্নীতি দমন কমিশন। তবে দুদক তার বিরুদ্ধে এখনও কোন প্রমাণ পায়নি বলে দাবি শামসুদ্দোহার।

কুষ্টিয়া হাউজিং স্টেটে একটি প্লট ও কক্সবাজার আবাসিক প্রকল্পে একটি ফ্ল্যাট থাকার অভিযোগ আছে শামসুদ্দোহার বিরুদ্ধে। এ বিষয়ে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান দেলোয়ার হায়দারের সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করা হলেও তাকে পাওয়া যায়নি।