করোনার ভুয়া টিকা বিক্রি, গণধোলাইয়ের পর জুতার মালা

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের কোবাগা এলাকায় করোনাভাইরাসের ভুয়া টিকা বিক্রির অভিযোগে দুই ব্যক্তিকে আটক করেছে এলাকাবাসী।

আজ রোববার সকালে টিকাদানের বিভিন্ন সরঞ্জামাদিসহ ওই দুই ব্যক্তিকে এলাকাবাসীরা আটক করে গণধোলাই দিয়ে জুতারমালা পড়িয়ে পুলিশে সোর্পদ করে।

আটক হওয়া ব্যক্তিরা হলেন, যাত্রাবাড়ির মীর হাজারিবাগের মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে আবজাল হোসেন ও পটুয়াখালীর গোমরাবাড়ির মৃত আব্দুল লতিফ খানের ছেলে বাবুল ইসলাম।

জানা যায়, উপজেলার জামপুর ইউনিয়নের কোবাগা হরি মন্দিরে করোনাভাইরাসের টিকা দেওয়া হবে বলে মাইকিং করা হয়। রোববার সকালে প্রতারকরা পূর্ব পরিকল্পিতভাবে গ্রামের সহজ সরল মানুষকে বোকা বানিয়ে ভিটামিন ইনজেকশন দিয়ে প্রতি মানুষের কাছ থেকে ২০০ থেকে ৫০০ টাকা পর্যন্ত টাকা নিতে শুরু করে। বিষয়টি এলাকাবাসীর মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে এলাকার লোকজন একত্রিত হয়ে আবজাল হোসেন ও বাবুল ইসলামকে আটক করে গণধোলাই দিয়ে জুতার মালা পরায়। এরপর তাদের তালতলা পুলিশ ফাঁড়িতে সোপর্দ করে।

তালতলা পুলিশ ফাঁড়ির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. আহসানউল্লাহ বলেন, ‘এলাকাবাসীর অভিযোগে দুজনকে আটক করা হয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু ভিটামিন ইনজেকশন উদ্ধার করা হয়েছে।’