পাবনায় বিপদসীমার ৩ সে.মি. ওপরে পদ্মার পানি

পাবনার পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজ পয়েন্টে পদ্মা নদীর পানি বেড়ে বিপদসীমার তিন সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। শনিবার (৫ অক্টোবর) পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ড (পাউবো) এ তথ্য জানিয়েছে। দুইদিন ধরে পদ্মার পানি বিপদসীমার আট সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছিল। গত ২৪ ঘণ্টায় পানির প্রবাহ কমেছে ৫ সেন্টিমিটার। ইতোমধ্যে পদ্মা নদী বেষ্টিত পাবনার সুজানগর উপজেলার গুপিনপুর এলাকায় এলজিইডির সড়ক ও স্থানীয় গোরস্থান ও ঈদগাহ মাঠ নদী ভাঙনের কবল থেকে রক্ষার জন্য আড়াই হাজার জিওব্যাগ ফেলানোর কাজ শুরু করেছে পাউবো কর্তৃপক্ষ।

হঠাৎ পানি বাড়ার কারণে সংশ্লিষ্ট এলাকাগুলোতে যেমন কৃষি ফসলের ক্ষতি হয়েছে, তেমনি পানি নামার সঙ্গে সঙ্গে নদী ভাঙনের মুখে রয়েছে জেলার বেশকিছু ইউনিয়ন। বিশেষ করে পাবনার সুজানগর এলাকাসহ জেলা নদী তীরবর্তী ১০টি ইউনিয়ন এ হুমকির সম্মুখীন রয়েছে। আর এ নদী ভাঙন প্রতিরোধে পাবনা পানি উন্নয়ন বোর্ড জিওব্যাগ ফেলে ভাঙন প্রতিরোধে চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

পাবনা সদরের ভাড়ারা, হেমায়েপুর, দোগাছি ইউনিয়ন ও পাবনা সুজানগর উপজেলার ভায়না, সাতবাড়িয়া, নাজিরগঞ্জ, মানিকহাট, সাগরকান্দি ইউনিয়ন পদ্মার ভাঙন হুমকির সম্মুখীন রয়েছে। তবে এ ভাঙনের জন্য অপরিকল্পিতভাবে বালু উত্তোলনের জন্য গ্রামগুলো আজ নদী ভাঙনের হুমকির সম্মুখীন হচ্ছে বলে মনে করছেন স্থানীয়রা।এছাড়া ঈশ্বরদী, সুজানগর ও পাবনা সদরের ভাড়ারা উপজেলায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে শুকনো খাবার বিতরণ শুরু করেছে জেলা প্রশাসন। এছাড়াও ত্রাণ হিসেবে ২০ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে বলে জানা গেছে।