নির্দেশ পেলে জাবি ভিসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা : ইউজিসি

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য ফারজানার বিরুদ্ধে মন্ত্রণালয়ে আগেই অভিযোগ উঠেছে। তবে অভিযোগের তদন্ত এখনো শুরু হয়নি। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশন সূত্র জানায়, এখন পর্যন্ত কোনো ধরণের নির্দেশ মন্ত্রণালয় থেকে আসেনি। ইউজিসি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালক মো. কামাল হোসেন বলেন, আমরা সার্বিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করছি। মন্ত্রণালয় থেকে নির্দেশ আসা মাত্র ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ফারজানা ইসলামকে অপরসারণের দাবিতে আজ বুধবার থেকে ক্যাস্পাসে সর্বাত্মক ধর্মঘট ডেকেছে সমাজতান্ত্রিক ছাত্রফ্রণ্ট। গতকাল বিশ্ববিদ্যালয় শহীদ মিনারে শিক্ষার্থীরা সমবেত হয়ে ভিসিকে লালকার্ড দেখান। পরে দুপুরে ফারজানা ইসলাম সংবাদ সম্মেলনে জানান, উপাচার্য পদ থেকে পদত্যাগ করছেন না তিনি । তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র হয়েছে বলে তিনি দাবি করেন।

সমাজতান্ত্রিক ছাত্র ফ্রন্টের (মার্ক্সবাদী) বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি মাহাথির মোহাম্মদ বলেন, বুধবার ও বৃহস্পতিবার সর্বাত্মক ধর্মঘটের মধ্যে ভিসি পদত্যাগ না করলে বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘেষণা করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের চেয়ারম্যান কাজী শহিদুল্লাহ বলেন, ভিসির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া আমাদের কাজ নয়। একজন উপাচার্যের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা শুধুমাত্র রাষ্ট্রপতি ও মন্ত্রণালয় নিতে পারেন। তবে আমাদের কোনো অভিযোগের তদন্ত ভার দেওয়া হয় আমরা দ্রæত তদন্ত প্রতিবেদন সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠাবো। ইতোমধ্যে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের তদন্তে সবাই দেখেছেন।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর এর ব্যানারে এক মাস ধরে আন্দোলন করে আসছে শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ নিয়ে উপাচার্য ফারজানা ইসলামের ‘মধ্যস্থতায়’ ছাত্রলীগের নেতাদের বড় অঙ্কের আর্থিক সুবিধা দেয়ার অভিযোগ তদন্তসহ তিন দফা দাবি করেন তারা। এসব দাবির বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের সঙ্গে দুদফা বৈঠকে সমঝোতা না হওয়ায় উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।